surgical-maska

(Surgical Mask) সার্জিক্যাল মাস্ক আসলে কোনভাবে পড়া উচিত? এ নিয়ে সাধারন মানুষের মর্ধ্যে অনেক তর্ক বির্তক হয়। সামাজিক যোগাযোগ মার্ধ্যমে অনেকেই জানতে চেয়ে পোস্ট করে থাকে, সেখান থেকে যুক্তি সংগত কমেন্ট গুলো এখানে তুলে ধরা হলো।

সার্জিকাল মাস্ক-এ ৩টি লেয়ার বা স্তর থাকেঃ

      1. Inner Layer বা ভিতরের অংশ (সাদা অংশ) যেইটা absorbent material দিয়ে তৈরি। যেমনঃ Cotton. এই লেয়ারের কাজ হচ্ছে তরল জিনিস শোষণ করে নেয়।
      2. Middle Layer বা মধ্যের অংশ যেইটা Filter or Barrier হিসেবে কাজ করে যা Non-woven material যেমন Polypropylene দিয়ে তৈরি। এই লেয়ারের কাজ হচ্ছে শোষণকৃত জিনিস বাহিরে বা ভিতরে প্রবেশ করতে বাধা দেয়।
      3. Outer Layer বা বাহিরের অংশ (নীল অংশ) যেইটা Non-absorbent Material যেমন Polyester বা Polyester Blend (মিশ্রণ) দিয়ে তৈরি। এই লেয়ারের কাজ হচ্ছে বাহিরের কোন তরল পদার্থকে ভিতরে প্রবেশ করতে বাঁধা প্রদান করে।
নীল অংশ টি #হাইড্রোফোবিক(পানি বিকর্ষি), আর সাদা অংশটি #হাইড্রোফিলিক(পানি গ্রাহী)।
নীল(হাইড্রোফোবিক) অংশটি বাইরে দিতে হবে, এতে কেউ হাচি কাশি দিলে ড্রপলেট গুলা মাস্কে পরলেও মাস্ক শোষণ করবে না… আপনি নিরাপদে থাকবেন! অন্যদিকে যদি সাদা অংশ(হাইড্রোফিলিক) অংশ বাইরে পরেন, তাহলে ড্রপলেট গুলা সহজে শোষিত হয়ে যাবে, এতে আপনি মাস্ক পরার চেয়ে না পরাই উত্তম।
নীল অংশ কনভেক্স মানে উত্তল তাই ওটা বাইরের দিকে থাকবে, সাদা অংশ অবতল তাই মুখের প্রক্সিমাল (কাছের অংশে থাকবে)। আবার একটু লক্ষ্য করলে দেখবেন নীল অংশ বেশি পিচ্ছিল ও মসৃণ তাই ধূলাবালি সহজে আটকে থাকেনা। কিন্তু সাদা অংশ তুলনামূলক ভাবে অমসৃণ সেখানে সহজেই ময়লা থাকবে। আমরা যারা ক্লিনিক্যাল সেক্টরে কাজ করি বেশিরভাগই সবাই নীল অংশ বাইরে রেখে পরি।

ধরি, একজন সুস্থ লোক মাস্ক কিনে নীল অংশ বাহিরে এবং সাদা অংশ ভিতরে পড়ল। তাহলে অন্য কোন আক্রান্ত বেক্তির হাঁচি কাশির জীবাণু তার মাস্কের উপরের অংশে (Non-absorbent Material দিয়ে তৈরি) পরে তখন এই জীবাণু মাস্ক ভেদ করে ভিতরে প্রবেশ করতে পারে না। তাই সুস্থ বেক্তির আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা থাকেনা বললেই চলে।

এখন সুস্থ বেক্তি যদি মাস্ক উল্টা করে পরে অর্থাৎ সাদা অংশ বাহিরে আর নীল অংশ ভিতরে পরে তাহলে আক্রান্ত বেক্তির হাঁচি কাশি থেকে আসা জীবাণু মাস্কের সাদা অংশ অর্থাৎ Absorbable Layer-এ পরে সেইটা মাঝের লেয়ার পর্যন্ত চলে আসবে সেই ক্ষেত্রে সুস্থ বেক্তির আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বেশী থাকে কারন আমাদের দেশের কিছু অসাধু বেবসায়িরা মাঝের লেয়ারটি Filter Paper ব্যাবহার করে না।

এখন আসি COVID-19 -এ আক্রান্ত বেক্তির কথায়, সে যদি মাস্কের সাদা অংশ বাহিরে দেয় আর নীল অংশ ভিতরে দেয় তাহলে তার জীবাণু মাস্ক খোলার পরে Non-Absorbable Layer থেকে পরিবেশে ছড়িয়ে পরবে। আর যদি সাদা অংশ ভিতরে এবং নীল অংশ বাহিরে দেয় তাহলে কোন সমস্যা নেই। কারন তার জীবাণু Absorbable Layer (সাদা লেয়ার) শোষণ করে মাঝের বেরিয়ার বা ফিল্টার লেয়ারের মধ্যে বাঁধা পেয়ে যদি উপরের বা নীল লেয়ারে যায়ও সেইটা বাহিরে বের হতে পারবে না কারন ওইটা Non-Absorbable Layer.
সারমর্মঃ মাস্কের সাদা অংশ বা Absorbable Layer ভিতরে এবং Non-Absorbable Layer বা নীল অংশ বাহিরে থাকবে সবসময়।

Surgical Mask নিয়ে আরো বিস্তারিত এখানে ক্লিক করে জেনে নিতে পারেনঃ WHO – When and how to use masks?

 

Reference: Facebook, DSE Group. & WHO, AARP.

সুরক্ষা করোনা ভাইরাস Vaccine Registration Apps টি Download করুন।